.
Published: Sun, Jul 28, 2019 3:20 PM
Updated: Tue, Aug 20, 2019 12:26 PM


বিবাহবিচ্ছেদ কেন হচ্ছে? কে বা কারা এর জন্য দায়ী

By Admin

বিবাহবিচ্ছেদ কেন হচ্ছে? কে বা কারা এর জন্য দায়ী

ইসলাম বিবাহকে প্রতিটি নরনারীর জন্য ফরজ করেছেন। মহান আল্লাহতালা নবী নাসুল থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি নরনারীকে বিবাহ করার নির্দেশ দিয়েছেন। প্রবিত্র কুরআন শরীফে বিবাহ কথা বলা হয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয়- শহর গুলোতে এই বিবাহ বিচ্ছেদের হার ভয়ংকর রুপ ধারণ করতেছে। এর প্রভাব এখন গ্রাম অঞ্চল  গুলতেও দেখা জাসছে। বিবাহবিচ্ছেদের হার কেন বাড়ছে? এই বিচ্ছেদ কি সচেতনার ফল নাকি আধুনিকতার প্রভাব।

চলুন আপানদের একটা গল্প শোনায়। আমার কাছের একটা বান্ধুবি “নামটা না হয় নাই উল্লেখ করলাম” ঢাকা “মিরপুর-১” থাকে আমার বান্ধুবি- সদ্য বিচ্ছেদ হওয়া এক নারীর। খুব কাছে থেকে খোলামেলা ভাবে আমার সেই বান্ধবীর সাথে কথা বলে বুঝতে পারলাম যে সে নিজেও চাইনি যে তাদের বিচ্ছেদটা হোক। কিন্তু সে পরিস্থিতির শিকার, পরিস্থিতির তাকে বাধ্য করেছে এই বিচ্ছেদটা ঘটাতে।

তাঁর মতে, বিয়ে হওয়ার পূর্বে যে পুরুষটিকে দেখেছিল বিয়ের পরে সেই পুরুষটি  অন্য রকম হয়ে যায়, সব সময়ই তার বন্ধুদেরকে নিয়ে সন্দেহ, এমনকি হাত তুলতেও দিধা করত না। তাই তাদের বিবাহ বন্ধন তা এক বছরও কাটেনি। এখনও হইত সেই মেহেদী হাতে রইয়েই গেছে। আমার বান্ধবীর শেষ কথা হল এমন পুরুষের হাতে টর্চার সেলে থাকার থেকে না থাকাটায় ভাল।

তবে এটা যে শুধু মেয়েদের ক্ষেত্রে হয় তা না, একটি পুরুষের বেলায়ও একই হইয়ে থাকে। এখন আর কেও কার কথা শুনতে নারাজ। তারা চাই না সারা অস্বস্তি এবং ভালবাসারহীন জীবিন নিয়ে এক সাথে থাকতে।

এখন সবার প্রশ্ন- যে এই সমস্যার জন্য কে দায়ী বা এর কারন কি?  ব্যক্তির সচেতনতা নাকি সামাজিক অস্থিরতার, নাকি নানা টিভি সিরিয়ালের এর জন্য দায়ী।

আমাদের দেশে পুরুষের সংখ্যা ৩০ শতাংশ, নারী ৭০ সংখ্যা শতাংশ। সেই হিসাবে, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের দুইটি এলাকায় ২০০৬ সাল থেকে ২০০৯ সালের এই ৪ বছরের মধ্যে বিবাহবিচ্ছেদ করা হয়েছে সর্বমোট ২,৩০৯টি, যার মধ্যে স্ত্রী কর্তৃক বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে ১৬৯২টি অপরদিকে স্বামী কর্তৃক বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে ৯২৫টি৷ আবার ২০১০ সাল থেকে ২০১৪  সালের এই ৪ বছরের মধ্যে বিবাহবিচ্ছেদ করা হয়েছে সর্বমোট ৩,৬৮৯টি, যার মধ্যে স্ত্রী কর্তৃক বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে ২,৫৯২টি অপরদিকে স্বামী কর্তৃক বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে ১০৯৭টি৷

এই পরিসংখ্যান দিয়ে বুজা যাইতেছে যে গত ৪ বছরে বিবাহবিচ্ছেদের পরিমাণ বেড়েছে প্রায় পাঁচ গুণ। যা বিশ্বাস করার মতো না। আর এখানেই বুজা যাইতেছে যে মূল কারন হল নারী। আমরা নারী বিষয়ক বিভাগের মহিলা আইন সহায়তা কেন্দ্রের একজন কর্মকর্তা সাথে কথা বলে জেনেছি যে, যত বিবাহবিচ্ছেদ ঘটেছে তার মধ্যে ৬০ ভাগেরও বেশি বিবাহবিচ্ছেদ কারন নারী।

কী কারণে বিবাহবিচ্ছেদ আর কেনই বা এই বিচ্ছেদ

আমারা মনে করি যে তারা নারী তালাকের পিছনে তিনটি প্রধান কারণকে দায়ী করা যায়- ১)যৌতুক প্রথা ২)শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন  এবং ৩) স্বামীর পরনারীতে আসক্তি। নারীকে তালাক দিয়েছে এমন অনেক পুরুষই মূল কারন দেখাইছে নারীর  চরিত্রকে দায়ী করেছেন। আর এই থেকে বুজা যায় যে পরনারী বা পরকীয়াই এর জন্য মূল কারন। আবার এদের কেউ কেউ দায়ী করেন হিন্দি সিরিয়াল এবং ভারত বাংলা স্টার জলসার সিরিয়াল এর মূল কারন। এইসব হিন্দি সিরিয়াল এবং ভারত বাংলা স্টার জলসার সিরিয়াল এর মূল উপজীব্যই হল ‘পরকীয়া প্রেম৷'তবে আমাদের সমাজ ও মনোবিজ্ঞানীরা মনে করেন যে এর প্রদান কারন হল বর্তমানে নারী শিক্ষার হার যেভাবে বাড়ছে একই ভাবে বাড়ছে নারিদের মধ্যে সচেতনতা। সেই সাথে বাড়তেছে নারীদের  স্বনির্ভরতা। তাই এখন আর কোন নারী সব অত্যাচার এবং অনাচার মুখ বুজে সহ্য করতে নারাজ।তাই তারা এখন প্রতিবাদী নারী। তাদের শেষ কথা অত্যাচার এবং অনাচারের দিন শেষ,  অত্যাচার-অনাচার মুখ বুজে সহ্য করার চেয়ে বিবাহ বিচ্ছেদকেই শ্রেয় বলে মনে করেন বর্তমানের প্রতিবাদী নারীরা। এখন আমাদের প্রতিবাদী নারীদের কথা যে স্বামীরা যেমন বাইরে কি করতেছে তারা যেমন দেখতে যাই না ঠিক তেমনি তারা কি করতেছে তাও স্বামীদের দেখার বিষয় না। কারন তারা এখন সচেতন ও স্বনির্ভর।

এছাড়া  বিভিন্ন কারনে বেশ কিছু নারী-পুরষ উভয়ই বিয়ের পর বিবাহবিসচ্ছেদ জড়াচ্ছেন। সমাজ বিজ্ঞানীরদের মনে করেন সবচেয়ে বড় কারন হল একে অপরের প্রতি বিশ্বাসহীনতা। এই  বিশ্বাসহীনতার কারনেই এই সমস্যা বাড়তেছে। এখন দেখবেন প্রায় প্রতিটি পরিবাবের স্বামী-স্ত্রী  জব করে এবং এই কাজের জন্য বাইরে যাচ্ছেন। এর ফলে তাদের বন্ধু- বান্ধব, সহকর্মী, অফিস এর বস এমনকি পরিচিতি জনের সঙ্গে মিশছে কথা বলছেন। এই কথা যে শুধু বাইরে তা নয়- এই কথা বলাটা তারা চালিয়ে জাসছেন ফোন, ইন্টারনেট ও এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

আমি তো এতক্ষণ অনেক কথায় বললাম এই “বিবাহবিচ্ছেদ” নিয়ে। জানি না কততুকু গ্রহনযোগ্যতা পাবে আমার লিখাটা। আমার লিখাটা তখনি স্বার্থকর্তা পাবে যখন আপনারা কমেন্ট বক্সে আপনাদের মতামত এর মাধ্যমে জানাবেন। ধন্যবাদ আমাদের Taslima Marriage Media সাথে থাকার জন্য। আর বিবাহ নিয়ে যদি কোন কিছু জানার থাকে তাও কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন।

আপানাদের যদি রুপ চর্চা নিয়ে কোন কিছু জানার থাকে তাহলে Shine Skin Bangladesh ওয়েবসাইট জান। এখান থেকে জানতে পারবেন কিভাবে acne care নিতে হয়, আরও জানতে পারবেন কোন কোন skin care পণ্য গুলো ভাল।আপনাদের সুস্বাস্থ্য আমাদের কাম্য


Register now to talk with your life parner.   Do you have account?   Login  
Categories: গল্প,
Tags: marrage, mach maker, shadi, Biye shadi
Division: Dhaka
District: Dhaka
Thana: Banani
This post read 143 times.
Taslima Marriage Media Blog


Our Website & Blog Visitors

Suggested Posts