5/5 - (2 votes)

যৌন মিলন এর সময় করণীয় নিয়ে এই কন্টেন্টটি সম্পূর্ণ তাসলিমা ম্যারেজ মিডিয়ার নিজস্ব। তাসলিমা ম্যারেজ মিডিয়ার পূর্ববর্তী অনেকগুলো ব্লগ হুবহু কপি করে অনেক ম্যাট্রিমনি সাইটে পাবলিশ করা হয়েছে, এ ব্যাপারটি আমাদের নজরে এসেছে। উক্ত ম্যাট্রিমনি সাইটের বিরুদ্ধে খুব দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই ব্লগের সম্পূর্ণ বা আংশিক অংশ কপি করে অন্য কোনো সাইট বিশেষ করে যেকোনো ম্যাট্রিমনি ব্লগে পাবলিশ করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যৌন মিলন বা সহবাসের স্থায়িত্ব কতক্ষণ হওয়া উচিত?

যৌন মিলনের বিষয়ে মোটামুটি বেশিরভাগ নারী ও পুরুষদের মধ্যে একটা ‘ফ্যান্টাসি’ কাজ করে। যৌন বিষয়ে নারীর অবাস্তব কল্পনাগুলো হচ্ছে – পুরুষের লিঙ্গ হবে মোটা এবং লম্বা, উত্তেজিত অবস্থায় রডের মত দৃঢ় যে সারারাত ধরে মিলন করতে পারবে। অন্যদিকে পুরুষরা মনে করেন- নারী হবে বিছানায় যৌন কর্মঠ, নিটোল এবং সুন্দর শরীরের অধিকারী, সকল অবস্থায় সহযোগী। সঙ্গীর সাথে দীর্ঘসময় ধরে যৌন মিলন বা সেক্স করার ইচ্ছা থাকে সবারই। তবে অনেকের মনেই প্রশ্ন আছে যৌন মিলন বা সেক্সের স্থায়িত্ব কতক্ষণ হওয়া উচিত? বিবাহিত দম্পতিদের চেয়ে অবিবাহিত তরুণ-তরুণীরাই এই প্রশ্ন বেশি করে থাকেন।

বিশেষজ্ঞরা বলেন সর্বোত্তম যৌন মিলনের সময়ের ব্যপ্তি ৭ থেকে ১৩  মিনিট পর্যন্ত হয়ে থাকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বেস্ট সেক্সুয়াল ইন্টারকোর্স ৭-১৩ মিনিটের  ভিতরেই হয়ে থাকে।

অন্য আরেকটি গবেষনা মতে- সেক্স সম্পর্কে সঠিক শিক্ষা, দেশ, চামড়ার রঙ এবং শারীরিক আকারের পার্থক্যের উপর ভিত্তি করে যৌন মিলনের সময় ব্যপ্তির তারতম্য দেখা যায়। বাংলাদেশ, ভারত, মায়ানমারসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে দম্পতিদের মিলনকালের গড় সময় ৪ মিনিটকে যথেষ্ট বলা হয়েছে। এ অঞ্চলের নারীদের মধ্যে মূলত যৌন মিলন সম্পর্কে অজ্ঞতা এবং তার শয্যাসঙ্গী খারাপ মনে করবে এই ধারনা খুব বেশি থাকার কারণে তারা সেক্সের সময় পুরোপুরি সক্রিয় হতে পারে না এবং এই কারণে ইউরোপ বা আমেরিকার দেশগুলোর তুলনায় পূর্ণ কামতৃপ্তি অর্জন করতে পারেন না।

আদর্শ জীবনসঙ্গী খুঁজতে

সুখী স্বামী-স্ত্রীদের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যকর সহবাস দীর্ঘ সময় ধরেই চলা উচিত। মহিলাদের ক্ষেত্রে ৩ থেকে ১৩ মিনিটই যথেষ্ট। কিন্তু পুরুষদের ক্ষেত্রে ধরাবাধা নিয়ম নেই। কারণ পুরুষদের ক্ষেত্রে যৌন মিলনের স্থায়িত্বটা তাদের ইচ্ছার উপর নির্ভর করে না। এটা সরাসরি নির্ভর করে শারীরিক সক্ষমতার উপর। নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ, ব্যায়াম করা ইত্যাদির মাধ্যমে একজন পুরুষ বেশিক্ষণ তার যৌন মিলনের সক্ষমতাটা ধরে রাখতে পারেন বা সেক্স করতে পারেন।

সুতরাং বলা যায়, ৩ থেকে ৭ মিনিট সময় ধরে যৌন মিলন যথেষ্ট। তিন মিনেটের কম হলে ‘খুব কম সময়’ এবং তের মিনিটের বেশি হলে তাকে ‘খুব লম্বা সময়’ বলা যায়।

যৌন মিলন এর সময় যে কাজগুলো করবেন না

আমাদের দেশে এখনও যৌনতা নিয়ে সরাসরি প্রকাশ্যে কথা বলতে বেশিরভাগ মানুষ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না। কিন্তু মনে রাখবেন ঘুম পাওয়া, খিদে পাওয়ার মতোই যৌন মিলনের ইচ্ছা জাগাটা স্বাভাবিক। তবে যৌন মিলন এর সময় অনেকেই এমন কিছু ভুল করেন, যার ফলে সঙ্গী অথবা সঙ্গিনী সেক্স করার আগ্রহই হারিয়ে ফেলেন!

সঙ্গীর অমতে যৌন মিলন করবেন না

স্বামী স্ত্রীর দুইজনের সম্মতিতে যৌন মিলন করলে তবেই পরিপূর্ণ যৌনসুখ লাভ করা সম্ভব। তাই সহবাসের সময় আপনার সঙ্গিনী রাজি কি না সে ব্যাপারে খেয়াল রাখতে হবে। যদি দেখেন যে আপনার সঙ্গীকে সুখী করতে গিয়ে আপনার একটু সমস্যা হচ্ছে তাতেও কোন প্রকার আপত্তি করা উচিত না। সব সময় খেয়াল রাখবেন আপনার সঙ্গী কি চায়। প্রয়োজনে দুই জনের মধ্যে ভালোলাগা ও চাওয়া পাওয়া বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করুন। তাহলেই পাবেন সেক্সের আসল সুখ।

বেশি তাড়াহুড়া করবেন না

প্রথমবার সহবাস করার সময় সঙ্গিনীর দেহে প্রবেশ এর পূর্বে আপনার যৌনাঙ্গ দিয়ে তার যৌনাঙ্গে হালকা ভাবে আদর করুন। সঙ্গীকে জানান যে আপনি এখন প্রবেশ করতে যাচ্ছেন, এরফলে সে আপনাকে ভিতরে নেয়ার জন্য মানসিক ভাবে প্রস্তুত হবে। আর কখনোই আপনার যৌনাঙ্গ জোর করে ঢুকানোর চেষ্টা করবেন না। আপনার সঙ্গিনীকে পর্যাপ্ত উত্তেজিত করুন। তাহলে পুরো বিষয়টি সহজ হয়ে আসবে দুজনের জন্যই। যদি দেখেন যে আপনার সঙ্গিনীর যৌনাঙ্গ আপনাকে নেয়ার জন্য প্রস্তুত নয় তাহলে সঙ্গিনীকে রাগ দেখাবেন না। যদি রাগ দেখান তাহলে পরবর্তীতে সে উত্তেজিত হবার বদলে ভয় পাবে এবং তার রেসপন্স করতে প্রচুর সময় নিবে।

অনেকে মনে করেন যে খুব দ্রুত যৌন মিলন করলে বেশী আনন্দ পাওয়া যায়। এটা ভুল। সঙ্গম একটি উপভোগের বিষয়। সুতরাং যত সময় নিয়ে উপভোগ করবেন আপনি ও আপনার সঙ্গী তত বেশী আনন্দ পাবেন।

যৌন মিলনের সময় আপনার সঙ্গিনীকে ব্যথা দেবেন না। সেক্স করার সময় মাঝে মাঝে প্রশ্ন করতে পারেন যে তার ভালো লাগছে কি না। মিলনের সময় যদি অল্প সময়ে নারী সঙ্গির যোনি রস শুকিয়ে আসে, বা পুরুষ সঙ্গির লিঙ্গ তেমন শক্ত না হয়, বা দ্রুত বীর্যপাত হয়ে যায় তাহলে সঙ্গীকে দোষারোপ করবেন না। নিয়মিত যৌন জীবনের মাঝে এরকম হতেই পারে। এরকমটা হলে সঙ্গীকে অভয় দিন, জানান যে কোন অসুবিধা নেই। প্রত্যেক বারই যে পূর্ণ সহবাস করতেই হবে এমন কথা নেই।

সঙ্গীকে অবজ্ঞা করবেন না

যৌন মিলনের সময় নিজেদেরকে পর্ণ মুভির নায়ক-নায়িকা মনে করে তাদের মতো করে যৌন মিলন করার চেষ্টা করবেন না। এছাড়া নিজের সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে অন্যের সঙ্গে তুলনা করবেন না। সঙ্গমের সময় সঙ্গী বা সঙ্গিনীর ফিগার, শারীরিক গঠন নিয়ে খারাপ কিছু বলবেন না! আপনার স্বামী বা স্ত্রী দেখতে যেমনই হোক না কেন বা তাকে যতই খারাপ লাগুক না কেন আপনাকে বুঝাতে হবে যে আপনি তার প্রতি খুবই আকর্ষিত। তা না হলে তার মন ভেঙ্গে যাবে এবং এর দীর্ঘ মেয়াদী প্রভাব পরবে। সুতরাং আপনি আপনার সাথীকে খুশী রাখার জন্য তার দিকে পূর্ণ মনযোগ দিন।

আর সঙ্গমের সময় নিজে তৃপ্ত না হলে সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে দোষারোপ করবেন না। ঠাণ্ডা মাথায় দুজনে একসঙ্গে সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করুন।

বীর্যপাতের পূর্বে সঙ্গিনীকে সতর্ক না করা

প্রথমবার যৌন মিলনে কেউই গর্ভধারণ করতে চান না। তাই যৌন মিলনের ক্ষেত্রে প্রথম সতর্কতার নাম হচ্ছে গর্ভসঞ্চার রোধ করা। আর এই কাজে সবচাইতে সহায়ক হচ্ছে কনডম। পুরুষেরা অবশ্যই কনডম ব্যবহার করুন। প্রথম যৌন মিলনের ক্ষেত্রে এটাই বেশি উপযোগী। আর যদি কনডম ছাড়াই সেক্স করেন তাহলে বীর্যপাতের আগে অবশ্যই সঙ্গিনীকে সতর্ক করবেন এবং নিজেও সাবধান থাকবেন। তবে সঠিকভাবে কনডম ব্যবহার করতে না পারলে জরুরী গর্ভনিরোধক পিল খেতে হবে।

বিয়ে সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য, সেবা, এবং পরামর্শ পেতে যোগাযোগ করুন তাসলিমা ম্যারেজ মিডিয়ার সাথে।
কল করুনঃ+880-1972-006691 অথবা +88-01782-006615 এ।
আমাদের মেইল করুন taslima55bd@gmail.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here