Rate this post

বেশ কয়েক দিন ধরেই আকাশের মন মেজাজ বেশ খারাপ। সবসময়ই কেমন হীনমন্যতায় ভোগে। কিন্তু এমন হওয়ার কথা ছিল না। মাস ছয়েক আগে অফিসে বড় প্রোমোশন পেয়েছে সে, স্ত্রী রিয়াকে নিয়ে প্রোমোশনের পরই দুজনে একসঙ্গে ছুটি কাটাতে গিয়েছিল। সমস্যাটা শুরু হয়েছে তারপর থেকেই। ছুটি কাটাতে গিয়ে একান্তে রোমান্স করার সুযোগ পেয়েছিল আকাশ এবং রিয়া। নতুন পরিবেশে অনেকদিন পরই যৌন মিলনের চেষ্টা করে তারা। কিন্তু আকাশ স্ত্রীকে খুশি করতে পারেনি। বাড়ি ফিরে এসেও কিছুতেই নিজের যৌন অক্ষমতা কাটাতে পারেনি। ফলে অপরাধবোধে ভুগতে শুরু করেছে সে। দিন দিন হীনমন্যতা বাড়ছে।

পুরুষের লিঙ্গ যদি যৌন মিলনের সময় সঠিকভাবে উত্তেজিত হয়ে না ওঠে তবে নারীর যোনির ভেতরে এটি কোনো প্রকার আনন্দের সৃষ্টি করতে পারে না এবং তার ফলে যৌন অক্ষমতা পুরুষত্বহীনতার সৃষ্টি হয়। বর্তমান যুগে বেশীর ভাগ পুরুষের মধ্যে এই সমস্যা বেশ প্রকট হয়ে উঠছে যৌন অক্ষমতা বা পুরুষত্বহীনতা। অনেক পুরুষ অকালেই হারিয়ে ফেলছেন নিজের সক্ষমতা, এতে বাড়ছে দাম্পত্যে অশান্তি। এটি একজন পুরুষের জন্য কলঙ্কের মতো। সে না পারে কাউকে বলতে না পারে তার সঙ্গীকে সুখী রাখতে। একদিকে যেমন সংসারে সমস্যা শুরু হয় অন্যদিকে সে লজ্জায় ভুগতে থাকে।

করোনা কালীন সময়ে বাড়ছে যৌন অক্ষমতা

অবিশ্বাস্য হলেও এটা সত্যি যে বর্তমান করোনা কালীন সময়ে পুরুষত্বহীনতা বা যৌন অক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনার সংক্রমণ কমিয়ে দিচ্ছে পুরুষদের প্রজনন ক্ষমতাও। একটি গবেষণা অনুযায়ী, করোনার কারণের পুরুষদের মধ্যে নপুংসতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ১০০ জন করোনা সংক্রমিত পুরুষের উপরে পরীক্ষা চালিয়ে দেখা যায়, ২৮ শতাংশ পুরুষদের ইরেকটাইল ডিসফাংশন বা যৌন অক্ষমতায় ভুগছেন। পুরুষরা যৌন মিলনে আগ্রহ হারাচ্ছেন। সাধারণক্ষেত্রে ইরেকটাইল ডিসফাংশনের সমস্যা ৯ শতাংশ পুরুষের থাকে।

ডাক্তাররা বলছেন, করোনা তে মহিলাদের তুলনায় ১.৭ গুণ বেশি পুরুষের মৃত্যু হয়েছে। যেহেতু করোনা ভাইরাস শ্বেত রক্তকণিকায় হামলা করছে সে কারণে শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমছে। এবং এর ফলে ফলে পুরুষের জননাঙ্গের সমস্যাও বাড়ছে। করোনায় প্রভাব ফেলছে এস্ট্রোজেন ও টেস্টোস্টেরন হরমোনেও। করোনা তে সেক্স হরমোন কমছে। তার ফলে পুরুষত্বহীনতা বা যৌন অক্ষমতার সম্ভবনা তৈরি হচ্ছে। তবে করোনায় যে কেবল পুরুষদেরেই সমস্যা হচ্ছে তা নয়, এ সময় মহিলারাও সমস্যায় পড়ছেন। বেশীরভাগ মহিলাদের পিরিয়ড অনিয়মিত হয়ে পড়ছে। সময়ের আগেই মেনোপজ হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিচ্ছে।

যৌন অক্ষমতা বা পুরুষত্বহীনতার প্রধান কারণগুলো কি?

পুরুষত্বহীনতা বা যৌন অক্ষমতা মূলত ৩ রকম-

আদর্শ জীবনসঙ্গী খুঁজতে

  • ইরেকশন ফেইলিউরঃ পুরুষ লিঙ্গের উত্থানে ব্যর্থতা।
  • পেনিট্রেশন ফেইলিউরঃ পুরুষ লিঙ্গের দ্বারা স্ত্রী যোনিদ্বার ছেদনে ব্যর্থতা।
  • প্রি ম্যাচিওর ইজাকুলেশনঃ যৌন মিলনে দ্রুত বীর্যপাত।

যৌন অক্ষমতা এর প্রধান কারণ হলো যৌন মিলনে পর্যাপ্ত জ্ঞান বা সেক্স এডুকেশনের অভাব। প্রাকৃতিক কারণে অনেকের যৌন অক্ষমতা থাকে। এগুলোর মধ্যে মুখ্য হলো- ডায়াবেটিস, লিঙ্গে জন্মগত কোন ত্রুটি, সেক্স হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, গনোরিয়া বা সিফিলিসের মত যৌনরোগ ইত্যাদি। এছাড়াও প্রচণ্ড কাজের চাপ, মানসিক অশান্তি, দূষিত পরিবেশ, ভেজাল খাওয়া দাওয়া, কম বিশ্রাম ও ব্যায়াম ছাড়া অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন ইত্যাদি অনেক কারণই আছে ক্রমশ যৌন অক্ষমতা এর পেছনে।

আবার অবাধ যৌন সম্পর্ক, অতিরিক্ত হস্তমৈথুন বা মাস্টারবেশন, যৌন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন রকম ওষুধ সেবন ইত্যাদি কারণকেও অনেকের যৌন জীবনে বিপর্যয় নেমে আসে। হার্ট এবং রক্ত চলাচলে সমস্যা, হাই কোলেস্টেরল, উচ্চ রক্তচাপ, ওবেসিটি, মেটাবলিজমে সমস্যা, পরিমিত ঘুমের অভাব সহ বিভিন্ন কারণে পুরুষত্বহীনতা রোগে ভুগছেন বহু মানুষ।

যৌন অক্ষমতা দূর করার উপায় কি?

প্রথমেই বলে নিই, আমাদের এর আগের পোস্টে প্রাকৃতিক উপায়ে যৌন ক্ষমতা বাড়ানোর কিছু ঘরোয়া টিপস দিয়েছিলাম। যৌন অক্ষমতা বা পুরুষত্বহীনতা দূর করতে এই টিপসগুলো খুবই কার্যকরী। টিপসগুলো জানতে এখানে ক্লিক করুন। এছাড়াও যৌন অক্ষমতা দূর করার আরও কিছু উপায় আছে। সেগুলো এই পোস্টে আলোচনা করছি।

আপনার যদি মনে হয় আপনি যৌন মিলনে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন তাহলে প্রথমেই যা করবেন, সেটা হলো একজন ভালো ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন। লজ্জা না করে নিজের সমস্ত সমস্যা খুলে বলুনে এবং ডাক্তারের পরামর্শ মত প্রয়োজনীয় সকল চিকিৎসা নিন। জীবন একটাই, যৌন অক্ষমতা বা পুরুষত্বহীনতা লজ্জার কিছুই নেই। লজ্জার চেয়ে নিজেকে সুস্থ ও সক্ষম রাখা জরুরী। মনে রাখবেন, পুরুষত্বহীনতা মানেই জীবনের আনন্দ উপভোগ বা যৌনজীবন শেষ হয়ে যাওয়া নয়। এই রোগ সাময়িক এবং এর চিকিৎসাও আছে। নিজের লজ্জাকে দূরে সরিয়ে সঠিক চিকিৎসা করালেই রোগ সেরে যায়।

আপনার যদি ডায়াবেটিস থাকে তাহলে ডাক্তারের দেয়া প্রয়োজনীয় সকল নিয়ম কানুন মেনে চলুন। প্রতিদিন একটি রুটিন মেনে চলুন। যৌন অক্ষমতা দূর করতে নিয়মিত স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টিকর খাবার খান, প্রতিদিন কিছু ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজ করুন এবং রাতে পর্যাপ্ত ঘুমানোর চেষ্টা করুন। আপনার শরীর যখন সুস্থ ও সক্ষম থাকবে, যৌনজীবনও থাকবে সুন্দর। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো সারাদিন নিজের যৌন অক্ষমতা নিয়ে ভাববেন না। জ্বর, সর্দি-কাশি হলে যেমন সেরে যায়, পুরুষত্বহীনতা ও সঠিক চিকিৎসায় সেরে যায়। তাই শারীরিক সমস্যার কথা ভেবে মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়বেন না।

স্ত্রী হিসেবে যদি আপনি দেখেন যে আপনার স্বামীর যৌন অক্ষমতা তাহলে তার সমস্যাটা আগে বোঝার চেষ্টা করুন। তার সঙ্গে কথা বলে সান্ত্বনা দিন, সঙ্গী সংকোচ বোধ করলে তাঁকে স্বাভাবিক করার চেষ্টা করুন। অতীতের দিন নিয়ে আলোচনা, রেস্টুরেন্টে খেতে কিংবা বেড়াতে যান, মন ভালো থাকবে। যৌন অক্ষমতা বা পুরুষত্বহীনতা নিয়ে রাগ করবেন না বা স্বামীকে সবসময় খোঁচা দেবেন না। নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণ করুন এবং সঙ্গীর প্রতি নমনীয় থাকুন। একে অপরের দোষ-গুণগুলোকে মানিয়ে নিয়ে, পরস্পরকে শ্রদ্ধা করে ভালবাসার বাঁধনে বাধুন। দেখবেন সুখের ঠিকানা আপনার হাতের মুঠোয়।

যৌন অক্ষমতা দূর করতে কি খাবেন?

এবার জেনে নিন যৌন অক্ষমতা দূর করতে প্রতিদিন কি কি খাবার খাবেন এবং সেগুলোর উপকারিতা কি-

রসুন

রসুনকে বলা হয় ‘গরীবের পেনিসিলিন’। যৌন অক্ষমতা দূর করার জন্য রসুন সবচেয়ে বেশী কার্যকরী। এটি অ্যান্টিসেপ্টিক হিসাবে কাজ করে। প্রতিদিন ২/৩টি কাঁচা রসুনের কোয়া চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন। এতে আপনার যৌন মিলনে আগ্রহ বেড়ে যাবে। তাছাড়া গমের তৈরি রুটির সঙ্গে রসুন মিশিয়ে খেলে তা আপনার শরীরে স্পার্ম উৎপাদনের মাত্রা বাড়ায় এবং সুস্থ স্পার্ম তৈরিতে এটি সাহায্য করে।

পেঁয়াজ

যৌন উত্তেজক ও সেক্স বৃদ্ধিকারী হিসাবে পেঁয়াজ বহুদিন থেকে ই ব্যবহার হয়ে আসছে। সাদা পেঁয়াজ পিষে নিয়ে তাকে মাখনের মধ্যে ভালো করে ভেঁজে নিয়ে প্রতিদিন মধুর সঙ্গে খেলে তা থেকে উপকার পাওয়া যায়। এইভাবে প্রতিদিন খেলে দ্রুত বীর্যপাত বা প্রিম্যাচিওর ইজাকুলেশন, ঘুমের মধ্যে ধাতুপতন ইত্যাদি সমস্যার সমাধান হওয়া সম্ভব। সবচেয়ে ভালো হয় পেঁয়াজের রসের সঙ্গে কালো খোসা সমেত বিউলির ডালের গুঁড়ো ৭ দিন পর্যন্ত ভিজিয়ে রেখে তাকে শুকিয়ে নিন। এটি নিয়মিত ব্যবহার আপনার কাম-উত্তেজনা বজায় রাখবে এবং আস্তে আস্তে যৌন অক্ষমতা দূর হবে।

গাজর

১৫০ গ্রাম গাজর কুঁচি এক টেবিল চামচ মধু এবং হাফ-বয়েল ডিমের সঙ্গে মিশিয়ে দুমাস খেলে আপনার যৌন অক্ষমতা বা পুরুষত্বহীনতা দূর হতে পারে। তাহলে আর দুশ্চিন্তা কি?

পালং শাক

পালং শাকে প্রচুর ফলিক অ্যাসিড এবং ম্যাগনেসিয়াম থাকে যা যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। সেই সঙ্গে ব্লাড ভেসেলের পরিধি বাড়িয়ে দিয়ে সারা শরীরে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাছাড়া ডাক্তাররা বলেন, ভ্যানিলা টেস্টের যে কোনো খাবার খেলে পুরুষদের মন ভালো হয়ে যায়। তাই এবার থেকে মুড ভাল রাখতে মাঝেমধ্যেই স্ট্রবেরি ফ্লেভারের কোনো খাবার খেতে পারেন।

যৌন অক্ষমতা দূর করতে যে কাজগুলো করবেন না

পুরুষত্বহীনতা থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে হলে ধূমপান, মদ্যপান এবং সব ধরনের নেশা ত্যাগ করতে হবে। অতিরিক্ত হস্তমৈথুন বা মাস্টারবেট করার থাকলে তা অবিলম্বে ত্যাগ করুন, যদিও মাঝে মাঝে অবিবাহিত পুরুষদের জন্য হস্তমৈথুন বা মাস্টারবেট খারাপ কিছু নয়। আর যাদের স্ত্রী আছে তাঁরা স্ত্রীর সাথেই যৌনজীবনে অভ্যস্ত হয়ে উঠুন। যৌন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য হারবাল কোম্পানি বা হাতুড়ে ডাক্তারদের শরণাপন্ন হবেন না। কবিরাজদের কথায় প্রভাবিত হয়ে তেল, ওষুধ অথবা কোনো ধরনের টোটকা ব্যবহার করবেন না। বাজারে সাময়িকভাবে যৌন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য যেসব ওষুধ পাওয়া যায় সেগুলোও ব্যবহার করবেন না।

যৌন অক্ষমতা সংক্রান্ত কিছু ভুল ধারণা

অনেকেই মনে করেন, পৃথিবীতে খুব বেশি সংখ্যক পুরুষ পুরুষত্বহীনতা রোগে ভোগে না। কিন্তু আপনি জেনে অবাক হবেন যে, প্রায় ২০ মিলিয়ন আমেরিকান প্রতি বছর পুরুষত্বহীনতা রোগেয ভোগে। প্রতি ১০ জনের ভেতর ২ জনের যৌন অক্ষমতা থাকে। আবার বয়স বেশী হলেই এই রোগ হতে পারে এমন কোনো কথা নেই। যেকোনো বয়সের পুরুষ যৌনতায় অক্ষম হতে পারেন। আর এই রোগের চিকিৎসা ব্যয়বহুল নয়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে পুরুষের যদি অন্যান্য শারীরিক কোনো অসুখ থেকে থাকে তবে পুরুষত্বহীনতার চিকিৎসার পাশাপাশি অন্য শারীরিক রোগেরও চিকিৎসা করাতে হয়। পুরুষ কেন পুরুষত্বহীন- এটা নির্ণয় সম্ভব হলে চিকিৎসা খুব একটি ব্যয়বহুল হয় না।

যৌন অক্ষমতা থাকলে কোনোভাবেই আশা ছাড়বেন না। সবসময় পজিটিভ থাকুন। সমস্যার সমাধান হবেই।

বিয়ে সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য, সেবা, এবং পরামর্শ পেতে যোগাযোগ করুন তাসলিমা ম্যারেজ মিডিয়ার সাথে।
কল করুনঃ+880-1972-006691 অথবা +88-01782-006615 এ।
আমাদের মেইল করুন taslima55bd@gmail.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here